Logo

পলাশবাড়ী ও পীরগঞ্জ উপজেলার সীমান্ত এলাকায় নদীর তীর প্রতিরক্ষার কাজ ্দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে

পলাশবাড়ী ও পীরগঞ্জ উপজেলার সীমান্ত এলাকায় নদীর তীর প্রতিরক্ষার কাজ ্দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে

গাইবান্ধা প্রতিনিধি: পলাশবাড়ী ও পীরগঞ্জ দুই উপজেলার সীমান্ত এলাকায় ৪.৬৭.৬০০.০৪০ টাকা ব্যয়ে নদীর তীর প্রতিরক্ষার কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। সংশ্লিষ্ট বিভাগের অভিমত এলাকার কতিপয় স্বার্থনেস্বী মহল উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড ব্যাহত করার চেষ্টা চালিয়ে যা”েছ। ফলে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজ সম্পন্ন করতে ব্যাহত হ”েছ বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট বিভাগ।

সরেজমিনে গিয়ে এলাকাবাসী ও সংশ্লিষ্ট বিভাগ কর্তৃক জানা যায়, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড, রংপুর বিভাগ, পওর বিভাগ বা পাউবো’র অধিনে রংপুর জেলার মিঠাপুকুর, পীরগাছা, পীরগঞ্জ রংপুর, রংপুর সদর উপজেলায় যমুনেশ^রী, ঘাট ও করতোয়া নদীর তীর সংরক্ষণ ও নদী পূনঃখনন শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে ৪.৬৭.৬০০.০৪০ টাকা ব্যয়ে পীরগঞ্জ উপজেলার করতোয়া নদীর তীর বদনাপাড়া নামক ¯’ানে ০.০০ হতে ০.৪০০ মিঃ নদীর তীর প্রতিরক্ষার কাজ দ্রæত গতিতে এগিয়ে চলছে। উক্ত কাজের জন্য নদীর চর থেকে শ্যালো মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন পূর্বক নদীর তীর ভরাট করা হ”েছ। কিছু‘ এলাকার কিছু স্বার্থনেস্বী মহল উক্ত নদীর চর তাদের রেকর্ডভূক্ত জমি বলে টাকার দাবী করে কাজে বাঁধা প্রদান করছে মর্মে সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় প্রকৌশলী মাহাবুবার রহমান জানান।

বেশ কয়েক বছর পূর্বে উক্ত ¯’ানটি বন্যার সময় করতোয়া নদী গর্ভে বিলিন হয়ে যায়। ফলে প্রতি বছরই বন্যার সময় ঐ ভাঙা ¯’ান দিয়ে বন্যার পানি প্রবেশ করে পলাশবাড়ী-সাদুল্যাপুর উপজেলার বেশ কয়েকটি ইউনিয়ন প্লাবিত হয়ে কৃষকের রোপা আমন ধান সহ নানা ফসলের ক্ষয়ক্ষতি হয়ে থাকে।

এলাকাবাসী জানায়, উক্ত কাজটি সমাপ্ত হলে পলাশবাড়ী-সাদুল্যাপুর উভয় উপজেলার কৃষকরা কোটি কোটি টাকার নানা ফসলের ক্ষতি হতে রক্ষা পাবে। তাই আগামী বর্ষা মৌসুমের আগেই কাজটি সমাপ্ত করা অত্যান্ত জরুরী বলে মনে করেন তারা


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *