Logo
HEL [tta_listen_btn]

আড়াইহাজারে করোনা ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্ব  পালনে পুলিশ সদস্যরা

আড়াইহাজারে করোনা ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্ব  পালনে পুলিশ সদস্যরা

বিশেষ সংবাদদাতা:
আড়াইহাজারে করোনার পুলিশের সদস্যরা করোনাভাইরাসের ঝুঁকি নিয়ে তাদের দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। করোনার এই দুর্যোগময় কালেও পুলিশ সদস্যদের দায়িত্বে কোনো প্রকার পরিবর্তন আনা হয়নি। নিয়মিত মামলা, জিডি, গ্রেফতারি পরোয়ানা ও টহল কাজে সদস্যরা তাদের দায়িত্ব পালন করছেন। তবে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম করোনা পরিস্থিতির শুরু থেকেই পুলিশ সদস্যদের সংক্রমণ মুক্ত রাখতে বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। এর মধ্যে প্রতিদিন থানায় আইনী সেবা নিতে আসা সাধারণ মানুষের জন্য থানার গোল ঘরে আইনী সেবা প্রদান হচ্ছে। থানায় প্রবেশ দ্বারে হাত ধোয়ার বেসিন বসানো হয়েছে। ওসি’র কক্ষে তিনফুট দূরুত্বে চেয়ার সরিয়ে নেয়া হয়েছে। পুলিশ সদস্যদের মাস্ক পরিধানের বিষয়টি তদারিক করা ও নিয়মিত ভিটামিন সি জাতীয় খাবার ও গরম পানি গ্রহণ করা ইত্যাদী। এর পরও করোনোর প্রর্কোপ থেকে রক্ষা করা যাচ্ছে না পুলিশ সদস্যদের। এরই মধ্যে প্রাণঘাতি করোনা তার থাবা বসিয়ে দিয়েছে পুলিশ সদস্যদের ওপর। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, এ পর্যন্ত এসআই, এএসআই ও কনস্টেবল সহ ১৪ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে এসআই ৪জন, এএসআই পরিদর্শক ৪জন ও কনস্টেবল ৬ জন। আরো অনেকের মধ্যেই করোনা উপসর্গ দেখা দিয়েছে। এতে পুলিশ সদস্যদের মধ্যে আতংক দেখা দিয়েছে। নাম না প্রকাশের অনিচ্ছুক এক এসআই বলেন, করোনাভাইরাসের এই পরিস্থিতিতেও আমাদের আগের মতোই দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে। এতে জীবনের ঝুঁকি বাড়ছে। আমাদের সদস্যদের মধ্যে অনেকেই এরই মধ্যে আক্রান্ত হয়ে পড়েছেন। এতে আমরা সুস্থরা সবাই দুশ্চিতায় ভোগছি। প্রতিদিনই নতুন নতুন সদস্য আক্রান্তের তালিকায় যোগ হচ্ছেন। তিনি আক্ষেপ করে আরো বলেন, মামলার আসামি ও গ্রেফতারি পরোয়ানা তামিলসহ বিভিন্ন ধরনের দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে। পাশাপাশি একইভাবে পেশাগত দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন আড়াইহাজার রিপোর্টার্স ক্লাবের সংবাদকর্মীরাও। কোনোভাইরাসের শুরুতেই এই সংগঠনের সাংবাদিকরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে করোনাভাইরাস সংক্রমণ মুক্ত রাখতে মানুষের মধ্যে প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে আসছেন। সচেতনতামূলক বিভিন্ন লাইভ ও পরামর্শমূলক বিভিন্ন সংবাদ তারা বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচার করছেন। এতে মানুষ উপকৃতও হচ্ছেন। প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে স্থানীয় প্রশাসনও বিভিন্ন সময় মানুষকে সচেতন করতে পদক্ষেপ নিচ্ছেন। আড়াইহাজার রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি এম এ হাকিম ভূঁইয়া বলেন, সংবাদকর্মী হিসেবে দুর্যোগকালিন এই সময়ে মানুষের প্রতি আমাদের একটা দায়বদ্ধতা অবশ্যই রয়েছে। এই সময়টাতে হাত গুঁটিয়ে ঘরে বসে থাকাটা সাংবাদিকের কাজ নয়। দুর্যোগ কালিন সময়ে অতীতেও অনেক সংবাদকর্মীই দেশ ও জাতির জন্য এমনভাবেই কাজ করেছেন। তিনি আরো বলেন, করোনা পরিস্থিতির শুরুতেই আমাদের সংগঠনের সকল সদস্যরা মাঠে কাজ করছেন। তারা তুলে আনছেন করোনা পরিস্থিতির সর্বশেষ খবর। এরই মধ্যে মানুষের মধ্যে আস্থার প্রতীকে পরিণত হয়েছে ‘আড়াইহাজার রিপোর্টার্স ক্লাব’। আড়াইহাজার থানার ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, ‘করোনায় পুলিশ সদস্যদের মধ্যে অনেকেই আক্রান্ত হয়ে পড়েছেন। তবে প্রথম থেকে আমি বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছিলাম। তার পরও মুক্ত রাখাটা সম্ভব হয়নি। এরই মধ্যে ১৪ জন পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তবে এরই মধ্যে অনেকেই সুস্থ হয়ে কাজে ফিরেছেন। এখনও যারা আক্রান্ত হয়ে আছেন। আমি তাদের সুস্থ্যতা কামনা করছি। তাদের স্বাস্থ্যগত খোঁজখবর রাখা হচ্ছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By Raytahost.Com