Logo
HEL [tta_listen_btn]

২৮২ কোটি টাকা ব্যয়ে না’গঞ্জে হবে  বস্ত্র-পাট জাদুঘর ও ইনস্টিটিউট

২৮২ কোটি টাকা ব্যয়ে না’গঞ্জে হবে  বস্ত্র-পাট জাদুঘর ও ইনস্টিটিউট

রূপগঞ্জ সংবাদদাতা :
গৌরবময় ইতিহাস ও সোনালী ঐতিহ্য সংরক্ষণ এবং তা সাধারণ জনগণের কাছে তুলে ধরতে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে তারাব এলাকায় বঙ্গবন্ধু বস্ত্র ও পাট জাদুঘর স্থাপন করবে সরকার। একই সঙ্গে সেখানকার উৎপাদিত জামদানি পণ্যের বাজারজাতকরণ ব্যবস্থার উন্নয়ন এবং তাঁত শিল্পীদের জন্য বিভিন্ন ধরনের সুবিধা নিশ্চিতে হবে প্রদর্শনী কাম বিক্রয় কেন্দ্র ও বস্ত্র প্রক্রিয়াকরণ কেন্দ্র। এ জন্য ‘বঙ্গবন্ধু বস্ত্র ও পাট জাদুঘর, জামদানি শিল্পের উন্নয়নে প্রদর্শনী কাম বিক্রয় কেন্দ্র, বস্ত্র প্রক্রিয়াকরণ কেন্দ্র এবং একটি ফ্যাশন ডিজাইন ইনস্টিটিউট স্থাপন নামে একটি প্রকল্পের উদ্যোগ নিয়েছে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়। প্রস্তাবিত বঙ্গবন্ধু বস্ত্র ও পাট জাদুঘর মুজিববর্ষে বাস্তবায়নের বিষয়ে মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। সে অনুযায়ী বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (পরিকল্পনা) কে আহŸায়ক করে গঠিত নয় সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি, জেলার রূপগঞ্জ উপজেলার তারাবোতে বঙ্গবন্ধু জাদুঘর স্থাপনের স্থান নির্ধারণ করে। যা বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ তাঁত বোর্ড। এতে ব্যয় হবে ২৮২ কোটি ১৫ লাখ টাকা। রূপগঞ্জের তারাবতে প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হবে। প্রকল্পের মেয়াদ ধরা হয়েছে ২০২১ সালের জানুয়ারি থেকে ২০২৪ সালের জুন পর্যন্ত। তাঁত বোর্ডের এক কর্মকর্তা জানান, সর্বশেষ ২০১৮ সালের তাঁত শুমারি অনুযায়ী আড়াইহাজারে ২০০টি, সোনারগাঁয়ে ২ হাজার ৭৯৯টি, রূপগঞ্জে ৩ হাজার ১৮৫টিসহ সারাদেশে ১০ হাজার ৫৩টি জামদানি তাঁত বিদ্যমান রয়েছে। সে হিসাবে প্রায় ৩১ হাজার লোক জামদানি শিল্পের সঙ্গে জড়িত। প্রকল্পের উদ্দেশ্য তুলে ধরে বাংলাদেশ তাঁত বোর্ডের চেয়ারম্যান (অতিরিক্ত সচিব) মোঃ শাহ আলম বলেন, এ প্রকল্পের উদ্দেশ্য হচ্ছে দেশের বস্ত্র ও পাট খাতের গৌরবময় ইতিহাস এবং সোনালী ঐতিহ্য সংরক্ষণ ও সাধারণ জনগণের কাছে তুলে ধরা। উৎপাদিত জামদানি পণ্যের বাজারজাতকরণ ব্যবস্থার উন্নয়ন করা। তাঁতশিল্পীদের জন্য বয়নপূর্ব ও বয়নোত্তর বিভিন্ন ধরনের সেবা প্রদানের সুযোগ সৃষ্টি করা। এছাড়া দেশের মধ্যম পর্যায়ের প্রযুক্তিবিদ তৈরি এবং তাঁতীদের দক্ষতা উন্নয়নের জন্য উপযুক্ত প্রশিক্ষণ প্রদান, পরিবর্তিত বাজারে ভোক্তার চাহিদার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে নতুন নতুন ডিজাইন উদ্বোধন ও দক্ষ ডিজাইনারসহ মানবসম্পদ তৈরি করাও এই প্রকল্পের অন্যতম উদ্দেশ্য।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By Raytahost.Com