Logo
HEL [tta_listen_btn]

বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এমপি সেলিমওসমান ব্যবসায়ীদের সময়কে ঠিকমতো কাজেলাগাতে হবে

বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এমপি সেলিমওসমান ব্যবসায়ীদের সময়কে ঠিকমতো কাজেলাগাতে হবে

নিজস্ব সংবাদদাতা:
মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে সংবর্ধনা ও দোয়ামাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমানের উদ্যোগে বীর মুক্তিযোদ্ধা, যোদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারদের মাঝে এ সংবর্ধনা প্রদানকরা হয়। ১৬ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জক্লাবের মাঠ প্রাঙ্গনে এ আয়োজন করা হয়। আয়োজনের সার্বিক সহযোগীতায় ছিল নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কর্মাস ও নারায়ণগঞ্জক্লাব।অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য একেএম সেলিমওসমান, নারায়ণগঞ্জ জেলাপ্রশাসক(ডিসি) মোঃজসিমউদ্দিন, নারায়ণগঞ্জ জেলারপুলিশসুপার(এসপি) মোহাম্মদ জায়েদুলআলম, নারায়ণগঞ্জ সদরউপজেলার নির্বাহী অফিসার(ইউএনও) নাহিদা বারিক, নারায়ণগঞ্জ জেলার সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কর্মাসেরসভাপতি খালেদ হায়দার কাজল, বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহানসহ জেলার মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমান বলেন, আমি মুক্তিযুদ্ধে যাওয়ায় ঘর থেকে বেরকরে দেয়া হয়েছিল। মুক্তিযুদ্ধে যোগদানের জন্য তখন কমান্ডের প্রয়োজনছিল, যারা কমান্ড দিত আমার বাবা সহ আরও অনেকে। আমার বাবার সামনে যখন আমি মৌখিক পরীক্ষা দিচ্ছিলাম তখন আমাকে বাবার নাম জিজ্ঞেস করা হয়েছিল, তখন আমি বলেছিলাম আমার বাবা বঙ্গবন্ধু শেখমুজিবুর রহমান। আমার বাবা খুব খুশি হয়েছিল সেদিন। তখন অনেকে বলেছিল ওরে আর ধরেরাখা যাবেনা।সেলিমওসমান আরওবলেন, আমার পরিবারের দুঃসময়ে বঙ্গবন্ধু আমাকে ব্যবসা করতে বলেছিল। তখন আমি বলেছি টাকা পাবো কোথায়। বঙ্গবন্ধু বলেছিল, ব্যবসায়ীদের জন্য টাকার প্রয়োজন হয় না সময়লাগে। সময়কে ঠিক মতো কাজে লাগাতে পারলে, ভালোব্যবসায়ী হওয়াযায়।নারায়ণগঞ্জ জেলাপ্রশাসক(ডিসি) মোঃজসিমউদ্দিন বলেন, সকল বীরমুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে আমি আমার বাবাকে খুঁজেপাই। মুক্তিযোদ্ধাদের রক্ত বিন্দুযদি এই মাটিতে থাকে, এদেশে অপশক্তিরা আর কোনপ্রশয় পাবেনা, হুংকারদিবেনা। ওরা এখন আরহুংকার দেয় না, ওরা খুব দুষ্টু। এখন ওরা রাতের আধাঁরে জাতিরপিতারভাস্কর্য ভেঙ্গেছে। আমিআমার কর্মকর্তাদের বলেছি, একটা জাতিরপিতার ছবি একটা ভাস্কর্য ভাঙ্গলে হাজার হাজার ভাস্কর্য তৈরিহবে।নারায়ণগঞ্জ জেলারপুলিশসুপার (এসপি) মোহাম্মদ জায়েদুলআলমবলেন, যাদের জন্য আমারবাংলাদেশ পেয়েছি, যাদের জন্য আমরা সেবারকরারসুযোগ পেয়েছিতারাই বীরমুক্তিযোদ্ধা। বঙ্গবন্ধু শেখমুজিবুররহমান স্বাধীনতাএনে দিয়েছেন। আমরা যারা শহীদ পরিবারের সন্তান মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান, আমরা সেই চেতনায় বিশ্বাসী হয়ে আপনাদের স্বপ্নবাস্তবায়নে কাজ করবো। মাননীয়প্রধানমন্ত্রী আছেন তিনি এখনও আপনাদের নিয়ে কাজ করে।বীরমুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলীবলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখহাসিনা আপনাদের বাসস্থান করার সুযোগকরে দিচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী বীরমুক্তিযোদ্ধাদের জন্য নানাসুযোগ-সুবিধারব্যবস্থা করেছেন। বঙ্গবন্ধু নাহলে এই দেশ আমরা পেতামনা। আপনারাসকলেপ্রধানমন্ত্রীর জন্য দোয়াকরবেন।অনুষ্ঠান শেষে নারায়ণগঞ্জক্লাবের অন্তভুক্ত বীরমুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে ক্রেস্ট প্রদানকরা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By Raytahost.Com