Logo

মেয়রের ফোনালাপটি উদ্দেশ্য প্রণোদিত -মাওলানা আব্দুল আউয়াল

মেয়রের ফোনালাপটি উদ্দেশ্য প্রণোদিত -মাওলানা আব্দুল আউয়াল

নিজস্ব সংবাদদাতা:
নারায়ণগঞ্জ জেলা হেফাজতে ইসলামের আমীর ও রেলওয়ে কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের (ডিআইটিমসজিদ) খতিব মাওলানা আব্দুলআউয়াল বলেছেন, এখন আমার কাছে মনে হচ্ছে উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবেই মেয়রআইভী আমার সাথে ফোনালাপটি তৈরী করে ছিলেন। তিনি বলেন,অনেক দিন আগে মেয়রের সাথে দেখা করেছিলোম, তখন তিনি আমাকে বললেন আপনি শামীমওসমান কে কী বলে সম্বোধন করেন? আমি বললাম, তিনি আপনার ভাই, আমারও ভাই। পরে তল্লা মসজিদ বিস্ফোরণের সময় তল্লা গিয়ে শামীমওসমানের সাথে দেখা হলো। আমি তাকে বললাম, মসজিদের সামনের রাস্তাটা ভালোনা। রাস্তায় পানি জমে থাকে রাস্তাটি ঠিক করে দেন। পরে শামীমওসমান বললেন, এটা আপনার বোনরে বলেন। বিষয়টা খুব মুশকিলের। উনার কাছে গেলে বলে ভাইরে বলেন। তারকাছে গেলেবলে বোনরে বলেন। আমরা তাহলে যাবোটা কোথায়? একজনকে ভাই আরেকজনকে  বোন বানিয়ে দিয়ে মাঝখান দিয়া যাঁতাকলের মত আমাগো পিষতাছেন। আমরা কোন রাজনৈতিক বলয়ের লোকনা। আমরা মুসলমানদের মুখপাত্র। আপনারা ইলেকশনে কে আসবেন বা ফেল করবেন তা আমাদের দেখার বিষয় না।’ শুক্রবার  (১৯ ফেব্রুয়ারি) দুপুর জুমার নামাজে খুতবার পূর্বে বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ফাঁস হওয়া ফোনালাপ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘মেয়র যখন ফোনে কথা বলছিলেন আমি অপ্রস্তুত অবস্থায় তার সাথে কথা বলছি। কিন্তু উনি সবকিছু সাজিয়ে গুছিয়ে কথা বলে আমার কথাগুলোকে সংরক্ষণ করবেন এজন্যই আমাকে ফোন দিয়ে ছিলেন। আমি ছিলাম অপ্রস্তুত আর তিনিছিলেন সম্পূর্ণ প্রস্তুত।তিনি আরও বলেন, ‘আমি আপনাদেরকে ঢাকার মেয়রের মসজিদ ভাঙ্গার প্রসঙ্গ নিয়ে কথা বলেছিলাম সেদিন। সে প্রসঙ্গ থেকে মেয়র আইভীর কিছুকীর্তির কথাও বলেছিলাম। যেমন, এখানে এতবড় রাস্তা প্রশস্ত করতে এসে আপনি রাস্তা খাপায় (সরু) নিলেন। কারণ সামনে একটা মাজার আছে। এটাকে উচ্ছেদ করার মত সাহস আপনার নাই। আর আপনি এটাতে হাতদিতেও পারবেননা। আমাদের এখানে হাত দিলে আপনার অসুবিধা নাই। কিন্তু ওখানে হাত দিলে আপনার হাতগলে যাবে। এটা হলো আপনার আকিদা বিশ্বাস। আব্দুল আউয়াল বলেন, ‘আপনি যেখানে ফুটপাত পরিষ্কার করার জন্য আন্দোলন করেন, সেখানে আপনি আপনার বাবার নামে পাঠাগার তৈরি করে ফুটপাত দখল করেছেন। ডিআইটি মসজিদের এদিকে সার্ভেয়ার আসছিল জায়গা মাপতে। জায়গা মাপা দেখে আমরা তাদের জিজ্ঞেস করেছিলাম কী মাপছেন? তারা বলেছিলেন, এখানে ফ্লাইওভার হবে সেটা মাপতে এসেছি। মেয়র বলেছেন, কেন তাকে ফোনদিয়ে জিজ্ঞাসা করিনাই? কথাহচ্ছে, সার্ভেয়াররা অনেক কাজই করে আর অবশ্যই সেটা মেয়রের নির্দেশেই। আমিবলেছিলাম ডিআইটিম সজিদে কেউ হাত দিলে কবর রচিত হবে। মেয়রআইভীকে উল্লেখ করে আমি কিছুই বলিনাই। তিনি আমাকে বারবার বলছিলেন, আপনি নাকি আমার কবর রচিত করবেন। এসব কথা বলে তিনি উল্টা আমাকে হুমকি দিয়েছেন। আমাকে বলেছেন, আপনি পারলে আমার কবর রচিত করেন দেখি, তারপর আপনি কোথায় থাকেন আমি দেখবো। পুনরায় ফোনালাপ প্রসঙ্গে মাওলানা আউয়ালবলেন, ‘ফোনালাপ হইছিলো আপনার সাথে। সেটা সাংবাদিকদের কাছে গেলো কেমনে? তার মানে আপনি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবেই এটা তৈরি করেছিলেন। গত ১৫ দিন ধরে নারায়ণগঞ্জের পত্রিকাগুলোকে শুধু এটারমধ্যেই রাখছেন। দুনিয়াতে আর যেমন কোন বিষয় নাই। আপনি বারবার বলছেন, মায়ের জাতের কথার প্রসঙ্গ এনে। এসব কথা বলে আমাদের দুর্বল করছেন। আমরা তো আপনাকে গালি দেই নাই। আবার পত্রিকায় দেখলাম শামীমওসমান রথযাত্রায় গিয়েছে। শামীম হোক আর অমুকতমুক হোক অন্যায় যে করবে তার বিরুদ্ধেই প্রতিবাদ ইসলাম করবে। তার জন্য বৈধ আর আপনার জন্য অবৈধ বিষয়টি সেরকমনয়। অনেকেই অনেকসময় আমাদের মধ্যে লাগাইতেচায়। আমারে কেউ এই জায়গার লোক বানায় আবার অন্য জায়গার লোক বানায়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *