Logo

কেন্দ্রীয় হেফাজতের নয়া কমিটি আউয়াল যুগ্ম মহাসচিব, ফেরদাউসুর বাদ

কেন্দ্রীয় হেফাজতের নয়া কমিটি আউয়াল যুগ্ম মহাসচিব, ফেরদাউসুর বাদ

নিজস্ব সংবাদদাতা:
কওমি মাদ্রাসা ভিত্তিক সংগঠন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগরের দুই শীর্ষ নেতা হলেন মাওলানা আবদুল আউয়াল এবং ফেরদাউসুর রহমান। মূলত এই দুই নেতার হাতেই বন্দি নারায়ণগঞ্জের হেফাজতে ইসলাম। ধর্মভিত্তিক কর্মসূচির বাহিরে নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতেও কলকাঠি নাড়েন তারা। প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে দাবার ঘুটি হিসেবে ব্যবহৃত হওয়ার অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের গত কমিটিতে এই দুইজন ছিলেন কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির ও সহ প্রচার সম্পাদক। কিন্তু নতুন ঘোষিত কেন্দ্রীয় কমিটিতে মাওলানা আবদুল আউয়ালকে যুগ্ম মহাসচিব হিসেবে রাখা হলেও বাদ পড়েছেন গতবারের সহ প্রচার সম্পাদক মাওলানা ফেরদাউসুর রহমান। এদিকে নায়েবে আমির থেকে যুগ্ম মহাসচিব হওয়ায় মাওলানা আবদুল আউয়ালের ডিমোশন হিসেবে দেখছেন অনেকে। সোমবার (৭ জুন) সকাল ১১টায় ঢাকার খিলগাঁও মাখজানুল উলুম মাদ্রাসায় সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন ৩৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়। কমিটিতে জুনায়েদ বাবুনগরীকে আমির এবং নুরুল ইসলাম জিহাদীকে মহাসচিব হিসেবে রাখা হয়েছে। মাওলানা ফেরদাউসুর রহমান ছাড়াও নারায়ণগঞ্জ থেকে বাদ পরেছেন অর্থ সম্পাদক মুফতি মনির হোসাইন কাসেমী, সদস্য মুফতি বশিরউল্লাহ। মনির হোসাইন কাসেমী ও বশিরউল্লাহ বর্তমানে নাশকতার মামলায় কারাগারে আছেন। মনির হোসাইন কাসেমী গত একাদশ জাতীয় নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে শামীম ওসমানের বিরুদ্ধে ধানের শীষ নিয়ে নির্বাচন করেছিলেন। তার বিরুদ্ধে ২০১৩ সালে ৫ মে শাপলা চত্বরে নাশকতা, ২০২০ সালের মামলা, নারায়ণগঞ্জে মামলা ও নাশকতাসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। মুফতি মনির হোসেন কাসেমী জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব ও জামিয়া মাদানিয়া বারিধারা মাদ্রাসার মুহতারিম। মুফতি বশিরউল্লাহ হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক। গত ২৮ মার্চ হেফাজতে ইসলামের ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতালে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন মুফতি বশির উল্লাহ। সেই হরতালে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের নারায়ণগঞ্জ অংশে রীতিমতো তান্ডব চালায় হেফাজতে ইসলামের কর্মী-সমর্থকরা।বাস, ট্রাক, পিকআপসহ বিভিন্ন যানবাহনে আগুন, সড়কে আগুন জ্বালিয়ে অবরোধ করে তারা। নির্বিচারে ভাঙচুর চালায়। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সাথে লাঠি-সোটা, ঢিল হাতে দফায় দফায় সংঘর্ষে জড়ায় হেফাজতের পিকেটাররা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *