Logo
HEL [tta_listen_btn]

গ্রেফতার আতংকে না’গঞ্জ বিএনপি  ৯৪৯ নেতাকর্মীর নামে গায়েবী মামলা

গ্রেফতার আতংকে না’গঞ্জ বিএনপি  ৯৪৯ নেতাকর্মীর নামে গায়েবী মামলা

দেশের আলো রিপোর্ট
নারায়ণগঞ্জের ৪ থানায় সেপ্টেম্বর থেকে এখন পর্যন্ত ৫টি মামলা দায়ের হয়েছে বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে। এসব মামলায় ৯শ’ ৪৯ জন বিএনপি নেতাকর্মীকে আসামী করা হয়েছে। এরমধ্যে শাওন নামে যুবদল কর্মী হত্যাকান্ডে বিএনপির পক্ষ থেকে পুলিশের বিরুদ্ধে আদালতে মামলার আবেদন করলেও তা খারিজ করে দেয়া হয়েছে। অপর এক ছাত্রদল নেতা অনিক হত্যাকান্ডের ঘটনায় তার বাবা মামলার আবেদন করলে তদন্তের জন্য পুলিশ প্রেরণ করেছে আদালত। জানা যায়, ১ সেপ্টেম্বর বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী দিন শহরে যুবদল কর্মী নিহতের ঘটনায় ২ মামলায় বিএনপি নেতাকর্মীদের আসামী করে মামলা শুরু করা হয়। নারায়ণগঞ্জের ৭টি থানা মধ্যে ৪টি থানায় ইতোমধ্যে ৯শ’ ৪৯ জন বিএনপি নেতাকর্মী বিরুদ্ধে ৫টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ৫ মামলার ২টি পুলিশ কর্মকর্তা ও বাকি ৩টি ছাত্রলীগ কর্মী, শ্রমিকলীগ নেতা ও যুবদল কর্মীর ভাই বাদি হয়েছে। সদর থানার ২ মামলা ১ সেপ্টেম্বর বিএনপি প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী র‌্যালিতে বিএনপি নেতাকর্মীদের পুলিশের সাথে সংঘর্ষে শাওন নামে যুবদল কর্মীর মৃত্যু হয়। এতে মামলা হয় দু’টি। একটিতে শাওনের ভাই মিলন প্রধান ও দ্বিতীয়টি এসআই কামরুজ্জামান বাদি হয়ে ৭১ জনের নাম উল্লেখ করে ৫শ’ জনের নামে হামলা ও বিস্ফোরক আইনে মামলায় করেন। গ্রেফতার করা হয় ১০জনকে। শাওন হত্যা নিয়ে সমকাল নিউজে ডিবি এসআই কনক ক্লোজড হয়েছিলেন।
ফতুল্লা থানার ১ মামলা ২২ নভেম্বর শীর্ষ সন্ত্রাসী জাকির খানের পক্ষে আদালতপাড়ায় সমর্থকদের মিছিল ও সড়কে বিস্ফোরণ ঘটানোর অভিযোগে বিএনপির ৩৪ জনের নাম উল্লেখ করে ২শ’ ৮৪ জনের বিরুদ্ধে এসআই শাহাদাত হোসেন বাদি হয়ে বিস্ফোরক আইনে মামলায় দায়ের করেন। এ মামলায় কোন গ্রেফতার না হয়নি।
বন্দর থানার ১ মামলা
১৯ নভেম্বর ২৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কার্যালয় ভাংচুর ও ককটেল বিস্ফোরণ ঘটনায় ছাত্রলীগ কর্মী মো. সোহেল বাদি হয়ে মামলা করেন। এতে ২৪ জনের নাম উল্লেখ সহ আরো ৩০জনকে আসামী করা হয়। এ মামলায় ৪জনকে গ্রেফতার করা হয়।
সোনারগাঁ থানার ১ মামলা
১৯ নভেম্বর কাঁচপুর ও মেঘনা ব্রীজের নামফলক ভাংচুর ও পুড়িয়ে ফেলার ঘটনায় থানায় বিএনপি নেতাকর্মীদের নামে জিডি করেছিলো সওজ। এতে পুলিশ তদন্ত চলমান। ১৭ নভেম্বর সোনারগাঁয়ের পিরোজপুর ইউনিয়নের আষাঢ়িয়ার চর এলাকায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সংঘর্ষের ঘটনায় মেঘনা শিল্পাঞ্চল শ্রমিক লীগের যুগ্ম আহŸায়ক আব্দুল হালিম বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেন। মামলায় আসামী করা হয় সোনারগাঁ উপজেলা যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রউফ ও তার ছোট ভাই পিরোজপুর ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল জলিলসহ ২৫ জনের নাম উল্লেখ করে আরো ১৫ জনকে।সিদ্ধিরগঞ্জ থানা এতে কোন হামলা ও সংঘর্ষ ঘটেনি। মামলাও নেই। আড়াইহাজার থানায় মামলা ও গ্রেফতার নেই। ২১ অক্টোবর সন্ধ্যার পর আড়াইহাজারে পাঁচগাও বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। উপজেলার দুপ্তারা ইউনিয়নে ৮নং ওয়ার্ড বিএনপির পরিচিতি সভাকে কেন্দ্র করে ২১ অক্টোবর সন্ধ্যার পর পাঁচগাও ভূঁইয়া বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। ২৩ নভেম্বর উপজেলায় কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদকের উপর হামলা করা হয়।
রূপগঞ্জের একজন গ্রেফতার
২২ নভেম্বর রূপগঞ্জ থানার নাশকতা ও সন্ত্রাস দমনের ২ মামলায় ছাত্রদল নেতা মাসুম বিল্লাহকে গ্রেফতারের পর নারায়ণগঞ্জ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে রিমান্ডের আবেদন করলে আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। ২২ নভেম্বর আদালতে রূপগঞ্জের ভুলতা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সহ ১৪জনকে আসামী করে মামলা আবেদন করেন ছাত্রদল নেতা অনিকের বাবা আমির হোসেন। ৩ নভেম্বর রাতে ছাত্রদলের মিছিল থেকে অনিক তুলে নিয়ে মারধর করে চলন্ত যানবাহনের নিচে ফেলে দিয়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যা অভিযোগ করা হয়।
অভিযোগে জানানো হয়, গত ১৮ আগস্ট রূপগঞ্জের দাউদপুর ইউনিয়নের বটতলা এলাকায় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের ওপর ছাত্রদল যুবদল ও বিএনপি নেতাকর্মীরা হামলা চালায়। এসময় তারা পিস্তল, ককটেল, রামদাসহ মিছিল নিয়ে এসে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মারধর করে। বাদি আওয়ামীলীগ নেতা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By Raytahost.Com