Logo
HEL [tta_listen_btn]

ইসদাইরে যুবক খুন…..নারীসহ ১৫ জনের নামে থানায় মামলা ২ আসামী গ্রেফতার \ ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ 

ইসদাইরে যুবক খুন…..নারীসহ ১৫ জনের নামে থানায় মামলা ২ আসামী গ্রেফতার \ ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ 

ফতুল্লা সংবাদদাতা
ফতুল্লার ইসদাইরে মাদক সেবনকে কেন্দ্র করে মামুন (২২) নামে এক যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যার ঘটনায় নিহতের বাবা বাবুল হাওলাদার বাদি হয়ে এক নারীসহ ১৫ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা আরো ৪-৫ জনকে আসামী করে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন। হত্যাকান্ডের ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার (৫ ডিসেম্বর) বিকেল ৫টায় ফতুল্লা মডেল থানার ইসদাইর ওসমানী স্টেডিয়াম সংলগ্ন নূর ডাইংয়ের পেছনের মাঠে। এসময় আহত হয় নূরনবী (২১) নামক অপর এক যুবক। হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে মামলার এজাহারনামীয় ২ আসামীকে সোমবার রাতে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো, ফতুল্লা মডেল থানার ইসদাইর এলাকার এড. হাসনাতের বাড়ির ভাড়াটিয়া ইসমাইল হোসেনের পুত্র মো. সামিউল ওরফে বুলেট (২২) ও ইসদাইর বাজার এলাকার সিরাজ কসাইয়ের পুত্র স্বপন (২০)। গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির (২) জানান, মামলার এজাহারনামীয় গ্রেফতারকৃত ২ আসামীর মধ্যে প্রথমে সামিউল ওরফে বুলেট গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সহায়তায় সোমবার রাতে স্বপনকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানান। নিহতের বন্ধু শফিকুল জানায়, সোমবার বিকেল ৪টার দিকে তাকে ফোন করে তার বাসার পেছনে আসে মামুন। পরক্ষণেই আসে মামুনের বন্ধু নূরনবী। এর কিছুক্ষণ পরেই সাইফুল,পায়েল, জয়, সাদসহ ১০-১৫ জন মামুন এবং নূরনবীকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে। এতে দু’জনই মারাত্মক আহত হয়। তাদেরকে উদ্ধার করে শহরের ৩শ’ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে মারা যায় মামুন। আশংকাজনক অবস্থায় নূরনবীকে নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। তিনি আরে জানান, গত কোরবানীর ঈদের পূর্বে বড় ভাই ও ছোট ভাই নিয়ে মারামারি হয় সাইফুল গ্রæপের সাথে। সেসময় বিষয়টি স্থানীয় বড় ভাইয়েরা মীমাংসা করে দেয়। সোমবার বিকেলেও নূরনবীর সাথে তাদের কথা কাটাকাটি হয়। এর জের ধরেই এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটায়। আহত নূরনবী সাংবাদিকদের জানায়, ইসদাইর বাজারের পেছনের একটি মাঠে হামলাকারীরা গাঁজা সেবন করতো। ঘটনার দিন বিকেলে তা নিয়ে তাদেরকে বকাঝকা করে মাঠ থেকে তাড়িয়ে দেয় মামুন। এনিয়ে সাইফুল-পায়েল গ্রæপের সন্ত্রাসীরা মামুন ও তাকে পেয়ে ছুরিকাঘাত করে। এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার ইনচার্জ শেখ রিজাউল হক দিপু জানায়, হত্যাকান্ডের ঘটনায় নিহতের বাবা বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। এজাহারনামীয় ২ আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জড়িত অপর আসামীদের গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে তিনি জানান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By Raytahost.Com