Logo

অপহরণ মামলায় স্কুলছাত্রী উদ্ধার

অপহরণ মামলায় স্কুলছাত্রী উদ্ধার

বন্দর সংবাদদাতা
প্রবাদে একটি কথা আছে চোর মানে না ধর্মের কাহিনী, আর প্রেম মানে না কোন জাতপাত। তেমনই একটি ঘটনা ঘটেছে বন্দর উপজেলার বালিগাও গ্রামে। প্রেমের টানে পিতা মাতা এমনকি হিন্দুধর্ম ত্যাগ করে ভালোবেসে গত ১৫ ফেব্রæয়ারি মঙ্গলবার দুপুরে বিজ্ঞ নোটারী পাবলিক হাকিমের কার্যালয়ে হাজির হয়ে ইসলামধর্ম গ্রহন করে। এঘটনা বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে সদ্য ইসলামধর্ম গ্রহনকারি কাজল ওরফে খাদিজা খাতুন নামে (১৫) বছরের এক কিশোরী। ওই দিনেই সে তার ভালোবাসার মানুষ বন্দর উপজেলার বালিগাঁও এলাকার করিম মিয়ার ছেলে প্রেমিক ওসমানকে ইসলামি শরিয়ত মোতাবেক বিয়ে করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। কিন্তু কিশোরী প্রাপ্ত বয়স না হওয়ায় তার পিতা কার্তিক কুমার দেবনাথ বাদী হয়ে গত ১৫ ফেব্রæয়ারি মঙ্গলবার বিকেলে প্রেমিক ওসমানসহ একই পরিবারের ৫ জনের নাম উল্লেখ করে বন্দর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন। মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, বন্দর উপজেলার কলাগাছিয়া ইউনিয়নের বালিগাও এলাকার কার্তিক কুমার দেবনাথের মেয়ে ফরাজিকান্দাস্থ সালাউদ্দিন কিন্ডার গার্টেন স্কুলে ৮ম শ্রেণীতে লেখাপড়া করে আসছে। পড়ালেখা করার সুবাদে স্কুলে আসা যাওয়ার সময় একই এলাকার মো. করিম মিয়ার ছেলে ওসমান প্রায় সময় উক্তেক্ত করত। পরে উক্তাক্ত ঘটনাটি স্কুল ছাত্রী পিতা জানতে পেরে ওসমানের পরিবারকে অবগত করে। এ ঘটনায় ওসমানের পিতা করিম মিয়া ও তার ২ ছেলে ওমর ও সুমন উল্টা স্কুল ছাত্রীর পিতাকে গালমন্দ করে। এর ধারাবাহিকতায় গত ১৫ ফেব্রæয়ারি মঙ্গলবার সকাল ৮টায় বাদী মেয়ে কাজল ওরফে খাদিজা খাতুন দোকানে যাওয়া উদ্দেশে ঘর থেকে বের হলে ওই সময় ওসমান সহযোগিতায় তার পিতা মাতাসহ দুই ভাই ওমর ও সুমন মিলে স্কুল ছাত্রী নাবালিকা মেয়েকে অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা এসআই মহসিন মামলা দায়েরের ওই দিন রাতে সোনাকান্দা এলাকা থেকে সদ্য ইসলামধর্ম গ্রহনকারি কিশোরী কাজল ওরফে খাদিজা খাতুনকে উদ্ধার করে বুধবার সকালে ডাক্তারী পরিক্ষার জন্য সংশ্লিষ্ট হাসপাতালে প্রেরণ করেছে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বন্দর উপজেলার বালিয়াগাও এলাকার কার্তিক দেবনাথের মেয়ে কাজল ওরফে খাদিজা খাতুনের সাথে একই এলাকার মোঃ করিম মিয়ার ছেলে ওসমানের সাথে দীর্ঘ ৪ বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। কাজল ওরফে খাদিজা খাতুন এ নিয়ে তিন তিন বার তার প্রেমিক ওসমানের সাথে পালিয়ে গেছে। স্থানীয় পঞ্চায়েত দুইবার মিলিয়ে দিয়েছে। কাজল ওরফে খাদিজা খাতুনকে অপহরণ করা হয়নি। সে প্রেমের টানে স্বেচ্ছায় হিন্দুধর্ম ত্যাগ করে ইসলামধর্ম গ্রহণ করে তার প্রেমিক ওসমানকে ইসলামি শরিয়ত মোতাবেক বিয়ে করেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

5 × 2 =


Theme Created By Raytahost.Com