Logo

মহানগর বিএনপিতে পদত্যাগের হিড়িক

মহানগর বিএনপিতে পদত্যাগের হিড়িক

দেশের আলো রিপোর্ট
মহানগর বিএনপিতে পদত্যাগের হিড়িক পড়েছে। নবঘোষিত নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির ৪১ সদস্য বিশিষ্ট আহŸায়ক কমিটি থেকে ১২ নেতা পদত্যাগ করেছেন। এরআগে নবঘোষিত মহানগর কমিটি থেকে পদত্যাগ করেন ৩ নেতা।এই নিয়ে পদত্যাগের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ালো ১৫ তে।এছাড়াও কমিটির আরও কয়েকজন নেতা আজকালের মধ্যে পদত্যাগ করবেন বলে জানা গেছে। যা ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।
জানা গেছে, রোববার (১৮ সেপ্টেম্বর) জেলা ওলামাদলের সভাপতি মুন্সী শামসুর রহমান বেনু ও নিহত যুবদল নেতা শাওনের জন্য দোয়া ও মিলাদ অনুষ্ঠান শেষে পদত্যাগের ঘোষণা দেন তারা। পরে পদত্যাগ পত্রও জমা দেন। তার আগে নিজেদের পদত্যাগ পত্র কেন্দ্রে পাঠিয়েছেন তারা।পদত্যাগকারি নেতারা হলেন, মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহŸায়ক ও বিলুপ্তমহানগর কমিটির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সবুর খান সেন্টু, যুগ্ম আহŸায়ক হাজী নুরুদ্দিন, সদস্য এড. বিল্লাল হোসেন, আলমগীর হোসেন, শহিদুল ইসলাম রিপন, মনোয়ার হোসেন শোখন, ফারুক হোসেন, হাজী ফারুক হোসেন, হান্নান সরকার, আওলাদ হোসেন, এড.আনিসুর রহমান মোল্লা ও এড. শরীফুল ইসলাম শিপলু। এরআগে নবঘোষিতমহানগর বিএনপির পদ থেকে পদত্যাগ করেনযুগ্ম আহŸায়কআতাউর রহমান মুকুল, আবুল কাউসার আশা ওসদস্য আমিনুল ইসলাম মিঠু। এছাড়াও কমিটির আরও কয়েকজন নেতা ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলতি কমিটি থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন। এর আগে ১৩ সেপ্টেম্বর এড. সাখাওয়াত হোসেন খানকে আহŸায়ক ও আবু আল ইউসুফ খান টিপুকে সদস্য সচিব করে মহানগর বিএনপির ৪১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্র। কমিটি ঘোষণার পরেই শুরু হয় বিদ্রোহ। অভিযোগ উঠেছে, কমিটিতে বাদ দেওয়া হয়েছে রাজপথের নেতাদের ও বিএনপির প্রভাবশালী জনপ্রতিনিধিদের। ধারণা করা হচ্ছে, এ কারণেই পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন এ ১৫ জন নেতা।
মহানগর বিএনপিরকর্মসূচি
মহানগর বিএনপির প্রথম কর্মসূচি ছিল রোববার (১৮ সেপ্টেম্বর)। কিন্তু মহানগর বিএনপির আহŸায়ক এড. সাখাওয়াত হোসেন খান ও সদস্য সচিব আবু আল ইউসুফ খান টিপু ছাড়া শীর্ষস্থানীয় অন্য কোনো নেতা এ কর্মসূচিতে ছিলেন না। বাধ্য হয়ে জেলা, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের দিয়ে দিনের কর্মসূচি পালন করেন এ দু’জন। বিকেলে কেন্দ্র ঘোষিত বিক্ষোভ কর্মসূচির অংশ হিসেবে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এ কর্মসূচি পালিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন মহানগর বিএনপির আহŸায়ক এড. সাখাওয়াত। দুপুর ২টার দিকে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে অবস্থান করছেন মহানগরের বর্তমান কমিটির সদস্য সচিব আবু আল ইউসুফ। ৩টা পর্যন্ত মহানগরের কোনো নেতাকে সেখানে পাওয়া যায়নি। পুরো শহীদ মিনার এলাকা ছিল ফাঁকা। পরে যোগ দেন এড. সাখাওয়াত। মহানগর বিএনপির শীর্ষ নেতারা না আসায় কর্মসূচিতে যোগ দেন জেলা বিএনপির সদস্য মাসুকুল ইসলাম রাজীব। তিনি তার অনুসারী নেতাকর্মীদের নিয়ে শহীদ মিনারে আসেন। তারপর কর্মসূচিতে যোগ দেয় জেলা ছাত্রদল, ফতুল্লা থানা ছাত্রদল, জেলা যুবদল, ফতুল্লা থানা যুবদল, সোনারগাঁ থানা ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা।
তার জেলা যুবদলের সদস্য সচিব মশিউর রহমান রনি একটি মিছিল নিয়ে কর্মসূচিতে যোগ দেন। তারা আসার পর শহীদ মিনারে আসেন জেলা বিএনপির সভাপতি মনিরুল ইসলাম রবি। তিনি আসার পর জেলা বিএনপির আরও কয়েকটি ইউনিটের নেতাকর্মীরা আসেন। এসময় পর্যন্তও মহানগর বিএনপির কোনো নেতা কর্মসূচিতে যোগ দেননি। কার্যত, জেলা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠন নিয়ে প্রথম দিনের কর্মসূচি পালন করেন মহানগর বিএনপির দুই নেতা। পুরো বিষয়টিকে ব্যর্থতা বলে মনে করছে মহানগর বিএনপি। এর আগে ১৩ সেপ্টেম্বর এড. সাখাওয়াত হোসেন খানকে আহŸায়ক ও আবু আল ইউসুফ খান টিপুকে সদস্য সচিব করে মহানগর বিএনপির ৪১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্র। কমিটি ঘোষণার পরেই শুরু হয় বিদ্রোহ। ইতোমধ্যে কমিটির ১৫ জন নেতা পদত্যাগপত্র দিয়েছেন। অভিযোগ উঠেছে, কমিটিতে বাদ দেওয়া হয়েছে রাজপথের নেতাদের ও বিএনপির প্রভাবশালী জনপ্রতিনিধিদের। যে কারণে নতুন কমিটির দুই নেতা বাদে আর কেউ কর্মসূচিতে ছিলেন না।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

3 × 1 =


Theme Created By Raytahost.Com